এইচএসসি কলেজ ভর্তির আবেদন ২০২০ এর গুরুত্বপূর্ণ তথ্যবলী

এইচএসসি কলেজে ভর্তির আবেদন ২০২০। 2020 সালের  কলেজে এইচএসসি ভর্তি বিজ্ঞপ্তি  প্রকাশিত হয়েছে । গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত সকল কলেজ/মাদ্রাসা/কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য শুধুমাত্র ইন্টারনেটের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে। তাই কলেজ ভর্তির ক্ষেত্রে যে সকল বিষয় জানা জরুরী এমন কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হল ।

কলেজ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০

একাদশ শ্রেণীর ভর্তি ৯ আগষ্ট থেকে শুরু হয়েছে । একজন প্রার্থী অনলাইনে সর্বোচ্চ ১০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবে তবে- একই প্রতিষ্ঠানের একাধিক শিফট/ভার্সন/গ্রুপে আবেদন করতে পারবে । কলেজ আবেদনের বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করা হল

টাইমলাইন
অনলাইনে আবেদন শুরু : ৯ আগস্ট  ২০২০ (সকাল ০৭.০০ টা)

অনলাইনে আবেদনের শেষ সময় : ২০ আগস্ট ২০২০ 

(১৫ আগস্ট, ২০২০ জাতীয় শোক দিবসে অনলাইন সার্ভিস ও কল সেন্টার বন্ধ থাকবে)

আবেদন ফি :  ১৫০/-  টাকা

১ম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ :  ২৫ আগস্ট ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টায়)

১ম পর্যায়ে Selection নিশ্চায়ন : ২৬ থেকে ৩০ আগস্ট ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টা পর্যন্ত)

২য় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ :  ৩১ আগস্ট থেকে ০২ সেপ্টেম্বর ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ পর্যন্ত)

পছন্দক্রম অনুযায়ী ১ম মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ  : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টায়)

২য় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ :  ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টায়)

২য় পর্যায়ের Selection নিশ্চায়ন : ০৫ থেকে ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ (বিকাল ৫ঃ০০ টা পর্যন্ত)

৩য় পর্যায়ের আবেদন গ্রহন : ০৭ থেকে ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

২য় মাইগ্রেশনের ফল প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর  ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টায়)

৩য় পর্যায়ের আবেদনের ফল প্রকাশ :  ১০ সেপ্টেম্বর  ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টায়)

৩য় পর্যায়ের Selection নিশ্চায়ন : ১১ থেকে ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০ (রাত ৮ঃ০০ টা পর্যন্ত)

কলেজ ভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর  ২০২০ (সকাল ৮ঃ০০ টার)

ভর্তি :  ১৩ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

ভর্তির যোগ্যতা

 ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালে দেশের যে কোন শিক্ষা বোর্ড এবং বাংলাদেশ উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালে এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীগণ আবেদন করতে পারবেন ।

কলেজ ভর্তির ক্ষেত্রে যে সকল বিষয় জানা জরুরী

► ৯ আগস্ট হতে ২০ আগস্ট, ২০২০ তারিখের মধ্যে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য শুধুমাত্র ইন্টারনেটের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে তবে ১৫ আগস্ট, ২০২০ জাতীয় শোক দিবসে অনলাইন সার্ভিস ও কল সেন্টার বন্ধ থাকবে ।

► ভর্তি সংক্রাস্ত সকল কার্যক্রমের সময়সূচি, ভর্তি নির্দেশিকা, আবেদনের নিয়মাবলী এবং ফলাফলের জন্য নির্ধারিত ওয়েবসাইট  www.xiclassadmission.gov.bd এবং স্ব স্ব বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকেও জানা যাবে।

►ইন্টারনেটে সর্বোচ্চ ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (কলেজ/মাদ্রাসা) আবেদনের জন্য ১৫০/- (সার্ভিস চার্জ সহ) আবেদন ফি প্রযোজ্য হবে। ইন্টানেটের মাধ্যমে আবেদনের জন্য নগদ/সোনালী ব্যাংক/টেলিটক/বিকাশ/শিওরক্যাশ/রকেট-এর মাধ্যমে ১৫০/- টাকা প্রদান করতে হবে।

► ইন্টারনেটে আবেদনে শিক্ষার্থীর কোন তথ্য অসত্য, ভুল বা অসস্পূর্ণ বলে প্রমাণিত হলে তার আবেদন/চূড়ান্ত ভর্তি বাতিল করার অধিকার শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।

► প্রথমবার আবেদনের সময় শিক্ষার্থীকে নিজের/অভিভাবকের একটি মোবাইল নম্বর দিতে হবে, যেটি শিক্ষার্থীর Contact Number হিসেবে বিবেচিত হবে। Contact Number টি শিক্ষার্থীর জন্য অতীব গুরত্বপূর্ণ কেননা পরবর্তীতে শিক্ষার্থীর সকল যোগাযোগ ও আবেদনের জন্য কিংবা আবেদন সংশোধনের জন্য এই Contact Number টির প্রয়োজন হবে।

► প্রয়োজনীয় অর্থ পরিশোধ করার সময় শিক্ষার্থী নিজের/অভিভাবকের যে Contact মোবাইল নম্বর প্রদান করেছেন সেটি সাবধানে পূরণ করতে হবে  এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ভর্তি সম্পর্কিত সকল তথ্য এই নম্বরে পাঠানো হবে। এই নম্বরের বায়োমেট্রিক নিবন্ধন সম্পন্ন হওয়া অত্যাবশ্যক। অভিভাবকের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর প্রদান করতে হবে এবং তাঁর (যাঁর জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর প্রদান করছেন) সাথে শিক্ষার্থীর সম্পর্ক উল্লেখ করতে হবে । ভর্তির সময় পূরণকৃত জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর যাচাই করা হতে পারে এবং জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর (অভিভাবকের) পূরণ করা
থাকলে ভর্তি প্রক্রিয়া সহজতর হবে।

► একাধিক শিক্ষার্থীর আবেদনে একই Contact Numberব্যবহার করা যাবে না অর্থাৎ ভিন্ন ভিন্ন শিক্ষার্থীর Contact Number  ভিন্ন ভিন্ন হতে হবে। Contact Number টি পরিবর্তন করা যাবেনা, তাই এক্ষেত্রে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে যাতে এটি ভুল না হয়।

► শিক্ষার্থীদের আবেদনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিফট/ভার্সন/গ্রুপ অনুযায়ী পছন্দক্রম প্রযোজ্য হবে। ইন্টারনেটে আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থী তার পছন্দক্রম সরাসরি ইনপুট দিতে পারবে (অর্থাৎ এন্ট্রি করতে পারবে)।

► ফলাফল প্রদানের পূর্বে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে (৯ আগস্ট হতে ২০ আগস্ট, ২০২০) ইন্টারনেটের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৫(পাঁচ) বার কলেজের পছন্দক্রম ও কলেজ পরিবর্তন করা যাবে। প্রথম পর্যায়ের আবেদনের তারিখ ৯ আগস্ট হতে ২০ আগস্ট, ২০২০। তবে প্রাথমিক নিশ্চায়নের পর আর কোন পরিবর্তন করা যাবে না।

► ৩ (তিন) টি পর্যায়ে ভর্তির ফলাফল প্রক্রিয়াকরণ করা হবে। একজন শিক্ষার্থীকে তার মেধা, কোটা (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) ও পছন্দক্রমানুযায়ী একটি মাত্র কলেজের জন্য নির্বাচন করা হবে। নির্বাচিত শিক্ষার্থী নিজেই অন-লাইনে বোর্ডের রেজিস্ট্রেশন ও অন্যান্য ফি বাবদ ২০০/- (দুই শত) টাকা জমা দিয়ে প্রাথমিক ভর্তি নিশ্চায়ন করবে এক জন শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ ২(দুই) বার স্বয়ংক্রিয়ভাবে মাইগ্রেশনের জন্য বিবেচিত হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে, মাইগ্রেশন সর্বদাই শিক্ষার্থীর পছন্দক্রমানুসারে উপরের দিকে যাবে।

►  পছন্দক্রম পরিবর্তন : একজন আবেদনকারী সর্বোচ্চ ৫(পাঁচ) বার ইন্টারনেটে ঢুকে কলেজের পছন্দক্রম এবং কলেজ পরিবর্তন করতে
পারবে।

কোটা বিষয়ক তথ্য

  • মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/সন্তানের সন্তানদের জন্য কোটায় ( (FQ) fভর্তি হতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থী তথ্য-ছকের নির্দিষ্ট স্থানে FQ কোটা Select করবেন। কোটায় আবেদনের ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষের ইস্যুকৃত মূল সনদ পত্র থাকতে হবে এবং পরবর্তীতে কলেজ/মাদ্রাসা কর্তৃক যাচাইকরণ হবে বিধায় কোটার অপশন (Option ) দেয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।
  •  যে সকল প্রতিষ্ঠানে বিশেষ কোটা (SQ) অনুমোদিত আছে- সে সকল প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের
    সন্তানগণ এই বিশেষ কোটার জন্য আবেদন করতে পারবেন। উল্লেখ্য যে, আবেদন চলাকালীন সময়ের মধ্যে
    সংশ্লিষ্ট কলেজসমূহ ইন্টারনেটে বিশেষ কোটা আবেদনকারীদের আবেদন নিশ্চিত করবেন।

মেধামান নির্ধারণ প্রক্রিয়া

  • শিফট/ ভার্সন, আসন সংখ্যা, পছন্দক্রম এর ভিত্তিতে একজন আবেদনকারী শিক্ষার্থীকে শুধুমাত্র একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নির্বাচিত করা হবে।
  • এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-র ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম নির্ধারণ করা হবে।
  •  কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানের ৯৫% আসন সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে যা মেধার ভিত্তিতে নির্বাচন করা হবে। অবশিষ্ট ৫% আসন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/সন্তানের সন্তানদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে।
  • যে সকল শিক্ষার্থী প্রতিবন্ধী হিসেবে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে তারা সংশ্লিষ্ট বোর্ডে ম্যানুয়ালি ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।  উল্লেখ্য যে, যারা কোটার জন্য ম্যানুয়ালি আবেদন করবে তারা একইসাথে সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে ইন্টারনেটেও আবেদন করতে পারবে।

 ভর্তির মাইগ্রেশন

মোট ৩ (তিন) টি পর্যায়ে ফলাফল প্রক্রিয়াকরণ করা হবে। প্রাথমিক নিশ্চায়ন সাপেক্ষে সর্বোচ্চ ২(দুই) বার স্বয়ংক্রিয়ভাবে মাইগ্রেশন প্রক্রিয়া চালনা করা হবে অর্থাৎ প্রাথমিক নিশ্চায়নের পরও সর্বোচ্চ ২(দুই) বার একজন শিক্ষার্থীর কলেজ নির্বাচন পরিবর্তন হতে পারে। প্রতি পর্যায়ে পছন্দক্রমানুযায়ী অটোমাইগ্রেশন হবে এবং মাইগ্রেশন সর্বদাই পছন্দক্রমানুসারে উপরের দিকে যাবে।

  • একজন শিক্ষার্থী তার আবেদনের সময় দেয়া কলেজ পছন্দক্রম ও এসএসসি/সমমান পরীক্ষার ফলাফল, কোটা ইত্যাদির ভিত্তিতে শুধুমাত্র ১টি কলেজেই সিলেকশন পাবে।
  •  নির্বাচিত শিক্ষার্থী নিজেই অনলাইনে বোর্ডের রেজিস্ট্রেশন ও অন্যান্য ফি বাবদ ২০০/- (দুই শত) টাকা জমা দিয়ে প্রাথমিক ভর্তি নিশ্চায়ন করবেন। উল্লেখ্য যে, প্রত্যেক নির্বাচিত শিক্ষার্থীকে অবশ্যই ২০০/- (দুই শত) টাকা জমা দিয়ে ভর্তি নিশ্চায়ন করতে হবে। অন্যথায় শিক্ষার্থীর মনোনয়ন ও আবেদন বাতিল হবে। আবেদন বাতিলকৃত শিক্ষার্থী ইচ্ছা করলে পরবর্তী পর্যায়ের জন্য পুনরায় আবেদন ফি জমা দিয়ে নতুন ভাবে আবেদন করতে পারবে।
  •  যে সকল শিক্ষার্থী আবেদনকৃত কোন কলেজেই সিলেকশন পাবে না তারা পুনরায় আবেদন ফি ব্যতীত এবং যারা ইতিপূর্বে কোন কলেজেই আবেদন করে নাই তারা আবেদন ফি জমা দেয়া সাপেক্ষে আবেদন করতে পারবে।

কলেজ ভর্তি ফলাফল ০২০

ফলাফল প্রক্রিয়াকরণের পর নির্দিষ্ট তারিখে শিক্ষার্থীদেরকে SMS -এর মাধ্যমে ফলাফল জানানো হবে এবং একই সাথে SMS-এ একটি গোপনীয় Security Code প্রদান করা হবে। এই Security Code  টি চুড়ান্ত ভর্তি নিশ্চায়নের জন্য সংরক্ষণ করতে হবে। তাছাড়াও শিক্ষার্থীগণ ভর্তির ওয়েবসাইট  www.xiclassadmission.gov.bd  থেকে ভর্তির বিস্তারিত ফলাফল জানতে পারবে।

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নির্দেশিকা

আপনি যদি একাদশ শ্রেণীর ভর্তি বিষয়ে আরো বিস্তারিত জানতে চান তবে একাদশ শ্রেনী ভর্তির আবেদন নির্দেশিকাটি ভালভাবে পড়ুন

অনলাইনে কলেজ ভর্তির আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুন


কদশ শ্রেণী ভর্তি বিষয়ে বিভিন্ন আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজ এবং ফেসবুক গ্রুপে ।

admissionwar-fb-page

aw-fb-group

Back to top button