পলিটেকনিক

পলিটেকনিক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং রুটিন ২০২১ | পলিটেকনিক রুটিন PDF

পলিটেকনিক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং রুটিন ২০২১। ডিপ্লোমা রুটিন ২০২১ প্রকাশিত হয়েছে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.bteb.gov.bd -তে। আপনি যদি BTEB পরীক্ষার রুটিন ২০২১ ডাউনলোড করতে চান, আপনি সঠিক পেজে এসেছেন। তো চলুন পলিটেকনিক পরীক্ষার রুটিন ২০২১ দেখা যাক এবং এক ক্লিকেই ডাউনলোড করে নেওয়া যাক।

পলিটেকনিক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং রুটিন ২০২১

ডিপ্লোমা রুটিন ২০২১ প্রকাশিত হয়েছে ১৭ই অক্টোবর ২০২১ তারিখে। প্রতিবারের মত এবারও BTEB পরীক্ষার রুটিন ২০২১ প্রকাশিত হয়েছে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.bteb.gov.bd -এ।

পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে প্রকাশিত এই পলিটেকনিক পরীক্ষার রুটিন ২০২১ অনুযায়ী। পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষার হলে যেয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। কিন্তু এই করোনা মহামারীর মধ্যেও কিভাবে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার হলে একসাথে পরীক্ষা দেবে?

এই প্রশ্নের উত্তর ও আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে জানবো কিন্তু তার আগে ডিপ্লোমা রুটিন ২০২১ দেখবো এবং সাথে দেখবো কিভাবে আমরা একটা ক্লিকের মাধ্যমেই পলিটেকনিক পরীক্ষার রুটিন ২০২১ ডাউনলোড করতে পারি।

এক নজরে প্রয়োজনীয় তথ্যসমূহ
  • পরীক্ষা শুরুঃ ৮ম নভেম্বর ২০২১
  • পরীক্ষা শেষঃ ৭ম ডিসেম্বর ২০২১
  • Official Website: www.bteb.gov.bd

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাক্রমের পরীক্ষার সময়সূচি ২০২১

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষা ক্রমের ২০১৬ প্রবিধানভূক্ত ২য়, ৪র্থ, ৬ষ্ঠ, ৮ম পর্ব নিয়মিত ও ৫ম পর্ব অকৃতকার্য বিষয় এবং ২০১০ প্রবিধানভূক্ত ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম পর্ব অকৃতকার্য বিষয় এবং ৮ম পর্ব অনিয়মিত পরীক্ষা-২০২০ এবং ডিপ্লোমা ইন ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি শিক্ষাক্রমের ২০১৬ প্রবিধানভূক্ত ২য়, ৪র্থ, ৬ষ্ঠ, ৮ম পর্ব নিয়মিত ও ৫ম পর্ব অকৃতকার্য বিষয়ের পরীক্ষা-২০২০ এর সময়সূচি ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাক্রমের পরীক্ষার সময়সূচি ২০২০ -এ উল্লেখ করা হলো। উল্লেখ্য যাদের মেকাপ বিষয় আছে তাদেরকেও এই ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাক্রমের পরীক্ষার সময়সূচি ২০২১ অনুসরন করতে হবে।

পলিটেকনিক ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং রুটিন ২০২১

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড পরীক্ষার রুটিন ২০২১ নিচে দেওয়া হলো। আপনি যদি কারিগরি বোর্ড রুটিন ২০২১ pdf আকারে ডাউনলোড করতে চান এক ক্লিকেই আপনি রুটিনের নিচের ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করেন কারিগরি বোর্ড রুটিন ২০২১ ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

01

02

03

সম্পূর্ণ রুটিন : ৩২ পেজ

ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষার রুটিন ২০২১

ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষার রুটিন ২০২১ পেতে উপরের ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে ফুল রুটিনটি ডাউনলোড করতে হবে। ফুল রুটিনের মধ্যেই ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষার রুটিন ২০২১ টি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ট্যুরিজম পরীক্ষার রুটিন ২০২১

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ট্যুরিজম পরীক্ষার রুটিন ২০২১ পেতে হলেও আপনাকে উপরের ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে ফুল রুটিনটি ডাউনলোড করতে হবে। ফুল রুটিনের মধ্যেই ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ট্যুরিজম পরীক্ষার রুটিন ২০২১ টি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ডিপ্লোমা ইন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষার রুটিন ২০২১

একিভাবে ডিপ্লোমা ইন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষার রুটিন ২০২১ পেতে উপর থেকে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক ফুল রুটিনটি ডাউনলোড করুন। ফুল রুটিনের মধ্যেই ডিপ্লোমা ইন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষার রুটিন ২০২১ টি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড পরীক্ষার রুটিন ২০২১

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড পরীক্ষার রুটিন ২০২১ এর সময়সূচী অনুযায়ী পরীক্ষা করোনা মহামারীর মধ্যেই নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু কিভাবে নেওয়া হবে? চলুন এই বিষয়ে কিছু ধারণা নেওয়া যাক।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিধি ও নিরাপদ শারীরিক দূরুত্ব বজায় রেখে বিন্যাস আসন বিন্যাস করতে বলা হয়েছে। নির্দিষ্ট শারীরিক দূরুত্ব বজায় রেখে পরীক্ষা নেওয়া হলে করোনা ভাইরাস বিস্তারের সম্ভাবনা অনেকটা কমে আসবে এবং শিক্ষার্থীরা নিরাপদ থাকতে পারবে।

তাহলে শিক্ষার্থীদের এ ব্যাপারে ভয়ের তেমন কারণ নেই। সবাই স্বাস্থ্য বিধি মেনে দূরত্ব বজায় রাখলে সবাই নিরাপদ থাকতে পারবে। শিক্ষার্থীদের এখন উচিৎ কারিগরি বোর্ড রুটিন ২০২১ টি দেখে নিয়ে এই দিকে মননিবেশ করা এবং পরীক্ষার প্রস্তুতি খুব ভাল্ভাবে নেওয়া।

BTEB পরীক্ষার রুটিন ২০২১

চলুন BTEB পরীক্ষার রুটিন ২০২১ সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

BTEB পরীক্ষার রুটিন ২০২১ এ উল্লেখিত তারিখ সমূহের যে কোন দিন কোন কারণ বশত সাধারণ ছুটি ঘোষিত হলে পরীক্ষা স্থগিত থাকবে এবং পরিবর্তিত তারিখ যথা সময়ে জানানো হবে।

এছাড়াও যদি করোনা পরিস্থিত আরও খারাপ পর্যায়ে যায় রুটিন যেকোন সময় পরিবর্তিত হতে পারে। এজন্য সকল পরীক্ষার্থীদের উচিৎ পরীক্ষা শেষ না হওয়ার পর্যন্ত নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা।

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড

১৯৬৭ সালের ১নং সংসদীয় কারিগরি শিক্ষা আইনবলে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড স্থাপিত হয়। বাংলাদেশে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণের মান নিয়ন্ত্রণ, মূল্যায়ন প্রণয়ন এবং উন্নয়নের সার্বিক দায়িত্ব বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের উপর রয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর কেন্দ্রীয়ভাবে বাংলাদেশের সকল পলিটেকনিক প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে। উপাধ্যক্ষের সহযোগিতায় এবং একজন অধ্যক্ষের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে যাবতীয় প্রশাসনিক, একাডেমিক, ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয়।

উদ্দেশ্য

  • কারিগরি শিক্ষা কাঠামোর নতুন কোর্স অনুমোদন এবং উন্নয়ন সাধন।
  • শিক্ষা পদ্ধতিতে ব্যবহৃত উপকরণসমূহের যোগান এবং উন্নয়ন সাধন।
  • কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে পরিচালনার জন্য কোর্স বাছাইকরণে সহযোগিতা।
  • অনুমোদিত কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার আয়োজন এবং তদারকি করা।
  • কৃতকার্য শিক্ষার্থীকে সরকারি সনদ প্রদান করা।

কারিকুলাম সমূহ

  • এস.এস.সি (ভোকেশনাল) ২ বছর মেয়াদী।
  • ডিপ্লোমা ইন কমার্স  (২ বছর মেয়াদী)।
  • এইচ.এস.সি (বিজনেস ম্যানেজম্যান্ট) ২ বছর মেয়াদী।
  • ডিপ্লোমা ইন ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট (৪ বছর মেয়াদী)।
  • ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং (৪ বছর মেয়াদী)।
  • ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার (৪ বছর মেয়াদী)।
  • ডিপ্লোমা ইন ফিশারিজ (৪ বছর মেয়াদী)।
  • ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (৪ বছর মেয়াদী)।
  • ডিপ্লোমা ইন ফরেস্ট্রি।
  • ডিপ্লোমা ইন লাইভস্টক।
  • ডিপ্লোমা ইন ডিপ্লোমা ইন টেকনিক্যাল এডুকেশন।
  • ডিপ্লোমা ইন জুট টেকনোলোজি।
  • ডিপ্লোমা ইন সার্ভেয়িং টেকনোলজি।

পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট এবং টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ

পলিটেকনিক প্রতিষ্ঠান একটি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। যেখানে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি বাস্তব এবং কর্মমুখী শিক্ষার প্রয়োগ ঘটে। এই প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরিচালিত হয়। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে পরিচালিত শিক্ষাক্রমগুলো হলোঃ ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং, ডিপ্লোমা ইন ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট, ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং,  ডিপ্লোমা ইন হেল্থ টেকনোলজি, এইচএসসি(ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা,  ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার, ডিপ্লোমা ইন ফরেস্ট্রি, এইচএসসি(ভোকেশনাল) ও এসএসসি(ভোকেশনাল), ডিপ্লোমা ইন মেরিন টেকনোলজি)। বোর্ড এর অধীনে ৪ বছর মেয়াদী শিক্ষাক্রম পরিচালিত হয়। ৪ বছর মেয়াদী শিক্ষাক্রম ৮ টি পর্বে বিভক্ত যাদের সেমিষ্টার বলা হয়। এক একটি সেমিষ্টারের কার্য দিবস ১৬ থেকে ১৮ সপ্তাহ। সে হিসেবে প্রতি বর্ষের কার্য দিবস ৩২ থেক ৩৬ সপ্তাহ। পর পর্ব সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় নির্ধারিত কার্য দিবস শেষ হওয়ার।

  • বাংলাদেশ কলেজ অব লেদার টেকনোলজিঃ

একটি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ কলেজ অফ লেদার টেকনোলজি বাংলাদেশের যেটি ১৯৪৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

  • মাইনিং এন্ড মাইন সার্ভে টেকনোলজীঃ

২০০৬ সালে বাংলাদেশের একমাত্র খনিজ সম্পদ বিষয়ক অনুষদ খসড়া কয়লা নীতির সুপারিশ অনুসারে বগুড়া পলিটেকনিক প্রতিষ্ঠান কার্যক্রম শুরু করে।

  • এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনিষ্টিটিউটঃ

৪ বছর মেয়াদী বাংলাদেশের ১৫টি এটিআইতে ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার কোর্সটি পড়ানো হয়।এছাড়াও বেসরকারিভাবে ১৬০ মতো প্রতিষ্ঠানে ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার ৪ বছর মেয়াদী কোসটি পড়ানো হয়।

বাংলাদেশের সরকারি ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার কোর্স এর কয়েকটি প্রতিস্ঠানের নাম:-

১।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট  শেরে বাংলা নগর, ঢাকা।

২।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট তাজহাট রংপুর।

৩।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট রহমতপুর, বরিশাল।

৪।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট  খাদিমনগর, সিলেট।

৫।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট  শেরপুর।

৬।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট , দৌলতপুর, খুলনা।

৭।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট  হমনা, কুমিল্লা

৮।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট  ঈশ্বরদী,পাবনা

৯।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট  রাঙ্গামাটি।

১০।এগ্রিকালচার ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট গাজীপুর।

বাংলাদেশের বেসরকারি ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার কোর্স এর কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের নামঃ

১।আবুল বাশার কৃষি কলেজ, ঢাকা।

২।তমালতলা কৃষি ও কারিগরি কলেজ, বাগাতি পাড়া, নাটোর।

৩।এম.এস.জোহা কৃষি কলেজ, হারদী,আলমডাঙ্গা, চুয়াডাঙ্গা।

৪।খান জাহান আলী কৃষি কলেজ, ডুমুরিয়া, খুলনা।

৫।ব্রেইলী ব্রীজ এগ্রিকালচার এন্ড পলিটেকনিক ইনিষ্টিটিউট, মীরবাগ, কাউনিয়া রংপুর।”

পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের সংখ্যা

বর্তমানে মোট ৪৯ টি সরকারি পলিটেকনিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে পুরোনো প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২০ টি, যেগুলো পুরোপুরি সরকারি। নতুন রাজস্বভুক্ত প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৫ টি। মনোটেকনিক প্রতিষ্ঠান ৩ টি, প্রকল্পভুক্ত ১৮ টি এবং মহিলা পলিটেকনিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৪ টি। বেসরকারি পলিটেকনিকের সংখ্যা ৩৮৭ টি

নিয়মিত পরীক্ষা সম্পর্কিত যেকোন তথ্য পেতে admissionwar.com এর সাথে থাকুন।

স্বীকারোক্তিঃ এখানে উপস্থাপিত সকল তথ্যই দক্ষ ও অভিজ্ঞ লোক দ্বারা ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করা। যেহেতু কোন মানুষই ভুলের ঊর্দ্ধে নয় সেহেতু আমাদেরও কিছু অনিচ্ছাকৃত ভুল থাকতে পারে।সে সকল ভুলের জন্য আমরা আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী এবং একথাও উল্লেখ থাকে যে এখান থেকে প্রাপ্ত কোন ভুল তথ্যের জন আমরা কোনভাবেই দায়ী নই এবং আপনার নিকট দৃশ্যমান ভুলটি আমাদেরকে নিম্নোক্ত মেইল / পেজ -এর মাধ্যমে অবহিত করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

ই-মেইলঃ admin@admissionwar.com অথবা এইখানে ক্লিক করুন।

admissionwar-fb-pageaw-fb-group

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Back to top button